করের হাট ইউপি চেয়ারম্যান পদে লড়বেন সুলতান গিয়াস উদ্দিন জসিম

0

এমএ মাসুম ভূঁইয়া, নিজস্ব প্রতিবেদক: মিরসরাইয়ের করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে লড়বেন করের হাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান গিয়াস উদ্দিন জসিম। ৫ জুলাই ছিল যাচাই-বাচাই এর তারিখ। ঐদিন ৩ জনের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষনা করেছে নির্বাচন কমিশন। বৈধ চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, সুলতান গিয়াস উদ্দিন জসিম, মোহাম্মদ শোয়াইব ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন মাসুদ ।

করের হাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী সুলতান গিয়াস উদ্দিন জসিম বলেন, দীর্গ ২৮ বছর যাবত করের হাই বাসীর সাথে আছি, ভবিষ্যতেও থাকবো। করের হাট ইউনিয়ের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সার্বিক উন্নয়নে আমার ভুমিকার আছে। জনগণ আমাকে নির্বাচিত করবে বলে আশা রাখি। নির্বাচিত হলে ,আমার নেতা, মাটি ওমানুষের নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন, এমপি মাহবুবুর রহমান রুহেল ও উপজেলা চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন নয়ন এর দিকনির্দেশনায় করের হাট ইউনিয়নকে মাদক মুক্ত স্মার্ট ইউনিয়ন গড়ার জন্য অঙ্গিকারাবদ্ধ। ইনশাহআল্লাহ।

উপ-নির্বাচনের তফশীল অনুয়ায়ী, ৪ জুলাই ছিল করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। ৬ থেকে ৮ জুলাই ছিল মনোনয়পত্র বাচাইয়ে রিটানিং অফিসারের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের। ৯ জুলাই আপিল নিস্পত্তি ও প্রার্থীতা প্রত্যাহার। ১১ জুলাই প্রতীক বরাদ্দ ও ২৭ জুলাই ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ।

উল্লেখ্য, গত ৮ মে মিরসরাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে অংশ নিতে করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যান এনায়েত হোসেন নয়ন পদত্যাগ করেন। এরপর নির্বাচন কমিশন পদটি শুন্য ঘোষণা করেছেন।

স্থানীয় একজন আওয়ামীলীগ নেতা জানায়, সুলতান গিয়াস উদ্দিন জসিম ১ নং করেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামী রাজনীতির এক দক্ষ সংগঠক। যিনি বিগত প্রায় দুই যুগ ধরে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগকে সকল প্রকার অপশক্তির হাত থেকে রক্ষা সহ বিশৃঙ্খলা মুক্ত করেরহাট গঠনে অসামান্য অবদান রেখে চলেছেন। তিনি করেরহাটস্থ গরিব-দুঃখী মেহনতী জনতার পরম বন্ধু।