মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা খাটো করে দেখিয়েছেন ট্রাম্প

0
15

নিউজ ডেস্ক:
মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা খাটো করে দেখিয়েছেন ট্রাম্প ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে ইরাকের আইন-আল-আসাদ সেনা ঘাঁটিতে ইরানের ভয়াবহ ক্ষেপণাস্ত্র হামলাকে গুরুত্বহীন করে তুলে ধরার নির্দেশ দিয়েছিলেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়- পেন্টাগনের সাবেক মুখপাত্র এলিসা ফারাহ একথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ওই হামলার খবর দেরিতে প্রকাশ করার পাশাপাশি গুরুত্বহীনভাবে তুলে ধরার জন্য পেন্টাগনকে নির্দেশ দিয়েছিল হোয়াইট হাউজ। এলিসা ফারাহর বরাত দিয়ে দৈনিক গার্ডিয়ান জানিয়েছে, ইরাকের মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ছিল ‘তার জীবনের সবচেয়ে কঠিন মুহূর্ত’।

২০২০ সালের ৩ জানুয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে বাগদাদ সফররত ইরানের কুদস ফোর্সের কমান্ডার লে. জেনারেল কাসেম সোলেইমানিকে হত্যা করে সন্ত্রাসী মার্কিন সেনারা। এর পাঁচদিন পর ৮ জানুয়ারি ইরাকের আল-আনবার প্রদেশের আইন-আল-আসাদ সেনা ঘাঁটিতে ভয়াবহ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি।

ওই হামলার ব্যাপারে প্রথম পরস্পরবিরোধী খবর প্রচারিত হয়। হামলায় বহু মার্কিন সেনা নিহত হয়েছে বলে ঘোষণা করে আইআরজিসি যদিও আমেরিকা দাবি করে তাদের সেনাদের কোনো ক্ষতি হয়নি।

এলিসা ফারাহ এখন বলছেন, সে সময় কোনো মার্কিন সেনা নিহত হয়নি বলে ট্রাম্প যে দাবি করেছিলেন, তা পেন্টাগনের রিপোর্ট অনুযায়ী সঠিকই ছিল। কিন্তু এরপর হোয়াইট হাউজের পক্ষ থেকে পেন্টাগনকে একথা বলার জন্য চাপ সৃষ্টি করা হয় যে, ইরানিরা সঠিক লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে পারেনি এবং তাদের হামলায় তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। ফারাহ বলেন, ইরানের হামলার ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে দেখানোর ক্ষেত্রে হোয়াইট হাউজ ও পেন্টাগন বাড়াবাড়ি করেছে।

২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে ইরানের হামলার পরপরই আইন-আল-আসাদ ঘাঁটির কমান্ডার টিমোথি গারল্যান্ড বিবিসিকে বলেছিলেন, ইরানের পক্ষ থেকে হামলার খবর তারা বাগদাদের মাধ্যমে আগেভাগে জানতে পেরেছিলেন কিন্তু ইরান যে এত শক্তিশালী হামলা চালাতে পারে তা তাদের ধারনায় ছিল না। ঘাঁটির সকল মার্কিন সেনা ভূগর্ভস্থ আশ্রয়কেন্দ্রে চলে গিয়েছিলেন এবং তারা আশ্রয়কেন্দ্রে বসে অনুভব করছিলেন একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় গোটা ঘাঁটি বারবার কেঁপে কেঁপে উঠছে।

মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার এক মাসেরও বেশি সময় পর ২০২০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি পেন্টাগন একথার সত্যতা নিশ্চিত করে যে, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় মস্তিস্কে আঘাত পাওয়া মার্কিন সেনার সংখ্যা ১০৯ জনে পৌঁছেছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY